শীতে রূপচর্চা

0
706
শীতে রূপচর্চা

শীতে রূপচর্চা।মহিলাদের কাছে গ্ৰীষ্ম বা বর্ষাকালের তুলনায় শীতকাল অনেক বেশী রমণীয়। শীতকালে গরম এবং প্যাচপ্যাচে ঘামের কবল থেকে ত্বককে রক্ষা করার চিন্তায় সৰ্ব্বক্ষণ ব্যস্ত থাকতে হয় না। আর গরমের কষ্ট, সে তো নারী-পুরুষ এবং শিশু-যুব-বৃদ্ধা সবার কাছেই সমান কষ্টকর। আবার অন্যান্য ঋতুর তুলনায় শীতে শরীর ও মন উভয়ই থাকে চনমনে।

শীতে কেন রূপচর্চা করবেন?

গ্রীষ্মে যেমন সহজেই দেহ মনে ক্লান্তি আসে, শীতে দেখা যায় ঠিক তার বিপরীত। কাজের প্রতি উৎসাহ দ্বিগুণ হয়ে ওঠে। তবে ছেলে বুড়ো প্রায় সবার মধ্যেই একটু আধটু জবুথবু ভাব দেখা দেয়। রূপচর্চার কথা বাদ দিলেও স্বাস্থ্যের পক্ষে শীতকাল অধিকাংশ মানুষের কাছে আদরণীয়। গ্রীষ্ম বা বর্ষার তুলনায় শীতকালে বেশীসংখ্যক প্রসাধন সামগ্ৰী ব্যবহারের মাধ্যমে নিজেকে সাজিয়ে রাখার সুবিধা অনেক বেশী।

শীতকালে সৌন্দর্য ধরে..

এতকিছু সত্ত্বেও শীতকালে সৌন্দর্য পিয়াসীদের কিছু না কিছু সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। এই সময়ে ত্বকের রোগ যেমন চুলকানি, খােস, পাঁচড়া, এবং একজিমা প্রভৃতি মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। শীতকালে বহু রকম, শাক-সব্জি পাওয়া যায়। যেগুলি স্বাস্থ্য রক্ষার ক্ষেত্রে অনুকূল। এই সময় হজম ক্ষমতাও বৃদ্ধি পায়। যার ফলে স্বাস্থ্যের উন্নতি হয়। আর যে সব মহিলা নিয়মিত যােগব্যায়াম করেন তারা যে এই সময়ে সুস্বাস্থ্যুবতী ও লাবণ্যময়ী হয়ে ওঠেন এ তো সর্বজনস্বীকৃত।

শীতকালে বাতাস শুষ্ক থাকে অর্থাৎ বাতাসের আর্দ্রতা অনেকাংশে হ্রাস পায়। আর বাতাসের আর্দ্রতা কমে যাওয়ায় ত্বকই সবচেয়ে বেশী প্রভাবিত হয়। ত্বকের কোমলতা ও মসৃণতা কমে গিয়ে খসখসে হয়ে ওঠে। গ্ৰীষ্মে, বিশেষ করে বর্ষায় যে ত্বক থাকে তৈলাক্ত, সেই ত্বকই শীতের শুষ্ক আবহাওয়ায় খসখসে হয়ে যায়।

অ্যারমা থেরাপি ফেসিয়াল :

শীতে রূপচর্চা

শীতে ত্বক শুষ্ক হওয়ার জন্য অস্বস্তি সৃষ্টি করে। এই ফেশিয়ালটি যেকোনো ধরনের ত্বকের জন্য উপকারী। অ্যারোমেটিক এসেনশিয়াল অয়েল গুলো ত্বকের যেকোনো সমস্যা দূর করে।শীতে রূপচর্চা

হাইড্রেটিং ফেসিয়াল :

শীতে রূপচর্চা

এই ফেশিয়াল করলে ত্বক মশ্চারাইজিং হয়ে শুষ্কতা দূর হবে। ত্বক সতেজ করবে এবং বয়সের ছাপ দূর করবে।

অক্সিজেন ফেসিয়াল :

ধুলাবালি এবং বার্ধক্যজনিত কারণে মুখে বয়সের ছাপ পড়ে যায়। অক্সিজেন ফেশিয়ালের ফলে ত্বক প্রান ফিরে পায়। এই ফেশিয়াল ত্বকে পানি এবং ভিটামিনের জোগান দেয়।

স্কিন ব্রাইটেনিং ফেসিয়াল :

শীতে রূপচর্চা

এটা এমন এক ধরনের ফেশিয়াল যা নির্জীব ত্বককে পুনর্জীবন দান করে। যদি মুখে পিগমেনটেশন থাকে তা দূর করে এই ফেশিয়াল ত্বককে উজ্জ্বল করবে।

চকোলেট ফেসিয়াল :

বর্তমানে এই ফেশিয়ালটি অনেক ব্যাবহার করা হচ্ছে, কারন ত্বকের জন্য এই ফেশিয়ালটি খুবই উপকারী। এটা যেকোনো ধরনের ত্বকের জন্য কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।

এছাড়াও ফ্রুট ফেসিয়াল করতে পারেন বিভিন্নধরনের শীতকালীন ফল দিয়ে। আপেল, কলা, পেপে, কমলালেবু ফলগুলো শীতকালে আপনার হাতের কাছেই পেয়ে যাবেন আর ঘরে বসেই সহজে করে ফেলতে পারেন ফ্রুট ফেশিয়াল।

এভাবে নিয়মিত ফেসিয়াল করলে ত্বক থাকবে উজ্জ্বল। তবে স্বাস্থ্যজ্জল ত্বক পেতে ত্বকের যত্নের পাশাপাশি দরকার স্বাস্থ্যকর খাবার, পর্যাপ্ত পরিমান ঘুম এবং পর্যাপ্ত পরিমান পানি পান করা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here